in

আপনার ফেলে দেওয়া পুরনো গ্যাজেটটি পরিবেশের কোনো ক্ষতির কারণ হচ্ছে না তো?

সময় থমকে থাকে না কখনো। খুব পছন্দের ফোন, ল্যাপটপ বা হাতঘড়িটিকেও একটা সময় ফেলে দিতে হয়। হয়তো এই যন্ত্রগুলোর মধ্যে কিছু কিছু দীর্ঘদিন ধরে টিকে থাকে। তবে সেটাই বা আর কতদিন! শেষমেশ গিয়ে ময়লার ঝুড়িতেই জায়গা হয় জিনিসগুলোর। এক্ষেত্রে শুধু আপনার আবেগটুকুই নয়, এর পেছনে কাজ করে আরো বড় একটি ব্যাপার।

আর সেটি হলো পরিবেশের উপর আপনার ফেলে দেওয়া যন্ত্রটির প্রভাব। অবশ্য, আপনার ব্যবহৃত যন্ত্রটি পচে যাওয়ার মতো নয়। সেটি হয়তো কেউ আবার ব্যবহার করতে পারবে এমন অবস্থাতেও নেই। তাহলে? কোথায় গিয়ে জায়গা হবে এই যন্ত্রের?

আর হ্যাঁ, শুধু পরিবেশ নয়। এক্ষেত্রে হুমকির মুখে পড়বে আপনার নিরাপত্তাও। যদি কোনোভাবে কেউ আপনার বাতিল করে দেওয়া যন্ত্রটি থেকে আপনার ব্যক্তিগত বা দরকারি কোনো তথ্য ব্যবহার করে? এটা সম্ভব যদি না আপনি যন্ত্রটি থেকে আপনার সমস্ত তথ্য সরিয়ে না নেন।

নিজের এবং পরিবেশের নিরাপত্তার তাগিদে তাই আপনার ব্যবহৃত গ্যাজেটটিকে নির্দিষ্ট, নিরাপদ ও সুরক্ষিত স্থানে ফেলে দেওয়া প্রয়োজন। একই সাথে, যন্ত্রের মধ্যে থাকা তথ্যগুলোকেও মুছে ফেলুন।

কোথায় ফেলবেন যন্ত্রটি?

নিজের এবং পরিবেশের নিরাপত্তার তাগিদে তাই আপনার ব্যবহৃত গ্যাজেটটিকে নির্দিষ্ট, নিরাপদ ও সুরক্ষিত স্থানে ফেলে দেওয়া প্রয়োজন; Image Source: media.wired.com

আপনার ব্যবহৃত যন্ত্রটি কি একেবারেই বাতিল হয়ে গিয়েছে? আপনি কি সেটি কাউকে বিক্রি করতে বা কারো সাথে বিনিময় করতে চাইছেন না? যন্ত্র ব্যবহার করা না গেলেও সেটা নিরাপদে কোথাও ফেলে দিতে পারেন আপনি। খুব সহজ একটি মাধ্যম হচ্ছে আপনার ব্যবহৃত যন্ত্রটির নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের কাছে সেটি হস্তান্তর করা। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান এই সুযোগ দিয়ে থাকে। তাই আপনার গ্যাজেটের নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের এমন কোনো উদ্যোগ আছে কি না তা দেখে নিন।

গ্যাজেটের বয়স এবং অবস্থার উপরে নির্ভর করে কিছু কম টাকা দিয়ে নতুন আরেকটি পণ্য কিনে নিতে পারেন; Image Source: slickdeals.net

এই যেমন অ্যাপল ‘রিসাইক্লিং প্রোগ্রাম’ নামক একটি কাজ করে। যার মাধ্যমে এর কোনো ব্যবহারকারী তার নষ্ট যন্ত্রটিকে নিয়ে অ্যাপলের কাছে ফিরিয়ে দিলে তার বদলে কিছুটা টাকা পাওয়া যায় নতুন যন্ত্র কেনার জন্য। এখানে অবশ্য ফিরিয়ে দেওয়া যন্ত্রটি কিছুটা হলেও ব্যবহারোপযোগী থাকতে হবে। অ্যাপল ছাড়াও গুগল এবং স্যামসাং এরও ঠিক একই রকম কিছু প্রক্রিয়া রয়েছে। এই প্রতিষ্ঠানগুলোতেও আপনি আপনার মোটামুটি ব্যবহারকৃত গ্যাজেটের বিনিময়ে, গ্যাজেটের বয়স এবং অবস্থার উপর নির্ভর করে কিছুটা কম টাকা দিয়ে নতুন আরেকটি পণ্য কিনে নিতে পারেন।

যদি আপনি আপনার গ্যাজেটটিকে এর নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের কাছে দিতে না চান, সেক্ষেত্রে আপনি যেখান থেকে পণ্যটি কিনেছেন, সেখানেও সেটি ফিরিয়ে দিতে পারেন। বেস্ট বাই এক্ষেত্রে নিজের বিক্রি করা বৈদ্যুতিক যন্ত্রপাতি ফিরিয়ে নেয়।

এছাড়া অন্যান্য প্রথম সারির বিক্রেতাদের কাছেও এ ধরনের কিছু সুবিধা পাওয়া সম্ভব। আপনার নিকটস্থ যন্ত্রপাতির পুনর্ব্যবহার নিয়ে কাজ করে এমন দোকানেও আপনি খোঁজ নিতে পারেন এ ব্যাপারে। ইন্টারনেটের এই যুগে যদি আপনি পুরো ব্যাপারটিকে আরেকটু সহজ করে তুলতে চান, তাহলে ই-সাইক্লিং সেন্ট্রাল ওয়েবসাইট ব্যবহার করতে পারেন।

তথ্য মুছে ফেলুন

আপনি আপনার ব্যবহৃত যন্ত্রটিকে বিক্রি করতে বা কাউকে দিয়ে দিতে চান? সেক্ষেত্রে নিজের নিরাপত্তার জন্য আপনি গ্যাজেটে বিদ্যমান আপনার সমস্ত তথ্য মুছে ফেলতে পারেন। হতেই পারে যে, আপনি ভাবছেন আপনার পুরনো যন্ত্রটি থেকে কোনো গুরুত্বপূর্ণ তথ্যই পাওয়া যাবে না। কিন্তু তারপরও, পুরো ব্যাপারটি সম্পর্কে নিশ্চিত থাকুন। চেষ্টা করুন গ্যাজেটে কোনোরকম কোনো তথ্য না রাখতে। সেটা হতে পারে কোনো ওয়ার্ড ফাইল, আবার হতে পারে আপনার টুইটারের পাসওয়ার্ড।

চেষ্টা করুন গ্যাজেটে কোনোরকম কোনো তথ্য না রাখতে; Image Source: www.imore.com

সাধারণত গ্যাজেটের কথা বলতেই আমরা বুঝি ফোন, ট্যাবলেট আর কম্পিউটারের কথা। এগুলোতেই আমাদের অনেক তথ্য নিজেদের অজান্তেই জমা করে রাখি আমরা। এই যন্ত্রগুলোর মধ্যে থেকে আপনার সমস্ত তথ্য সরিয়ে নেওয়ার সবচাইতে সহজ উপায়টি হচ্ছে ‘রিসেট’ করা। তবে এই কাজটি করার আগে নিশ্চিত হয়ে নিন যে, আপনার খুব প্রয়োজনীয় তথ্য, ফাইল ও ছবি আপনি সরিয়ে নিয়েছেন বা হার্ড ড্রাইভে রেখেছেন।

আপনি যদি অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইজ ব্যবহার করে থাকেন, সেক্ষেত্রে Settings এ যান। এরপর System > Advanced > Reset options- এই প্রক্রিয়াটি অনুসরণ করুন। এরপর সমস্ত তথ্য মুছে ফেলুন। আপনি iOS ব্যবহার করলে Settings এ যান। এরপর General > Reset > Erase All Content and Settings এই প্রক্রিয়াটি অবলম্বন করুন।

আপনি উইন্ডোজ কম্পিউটার ব্যবহার করলে প্রথমে Settings অ্যাপে যান। এরপর Update & Security তে ক্লিক করুন। এরপর Recovery > Get started  > Reset this PC  এই পদ্ধতিটি ব্যবহার করুন। এই প্রক্রিয়াটির সময় নিজের সমস্ত ব্যক্তিগত ফাইল মুছে ফেলুন।

আপনি যদি ক্রোমবুক বা ক্রোম OS tablet ব্যবহার করে থাকেন, সেক্ষেত্রে Settings-এ যান, Advanced অপশনটি বেছে নিন এবং Powerwash করে সবগুলো তথ্য মুছে ফেলুন। আপনি ম্যাক ব্যবহার করলে প্রথমে macOS চালু করন।এরপর Option+Command+R  প্রক্রিয়াটি ব্যবহার করুন। Reinstall macOS বেছে নিন এবং Continue এ ক্লিক করে নিজের গ্যাজেটটিকে আগের মতো করে ফেলুন।

অব্যবহৃত গ্যাজেট; Image Source: o.aolcdn.com

তবে সবচাইতে ভালো উপায়টি হচ্ছে, আপনার পছন্দের যন্ত্রটি ব্যবহার করা গেলে পরিবারের অন্য সদস্যদের দিয়ে দেওয়া। আর তেমনটা না হলে সেটি বিনিময় বা বিক্রি করাটাই সবচাইতে সহজ উপায়। আর হ্যাঁ, অবশ্যই যে পন্থাটিই আপনি বেছে নিন না কেন, চেষ্টা করুন নিজের সব তথ্য গ্যাজেট থেকে সরিয়ে নেওয়ার।

\

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *