in

গাড়ি নিয়ে তৈরী সেরা সব মুভি রিভিউ

আঠারো শতকের শেষ ভাগে  গাড়ি এবং সিনেমা দুটোরই প্রায় একসাথে পথচলা শুরু।  তারপর থেকে তারা যেন প্রায় একে অপরের যাত্রা সঙ্গী। আসলে দুটিই প্রযুক্তির বিস্ময়ের প্রতিনিধি।

তাদের এই অনন্য সম্পর্কের চিত্র আমরা বিভিন্ন কার মুভিতেও দেখতে পাই।

সুন্দর সুন্দর গাড়ি থাকলেই তাকে কার মুভি বলা যাবে না ; Image Source: gamerworld.com

এখানে একটা ব্যাপার পরিষ্কার করা দরকার যে, এটি জরুরী নয় যে,  কার মুভিতে শুধু সুন্দর সুন্দর গাড়ি ব্যবহার করলেই হবে,  যেমন জেমস বন্ড সিরিজে কিছু চমৎকার গাড়ি ব্যবহার করা হয়েছে এবং একশন দৃশ্যও করা হয়েছে গাড়ি দিয়ে কিন্তু তারপরও জেমস বন্ড সিরিজ আমাদের কাছে কার মুভি হিসেবে নয় বরং একশন নির্ভর  স্পাই থ্রিলার হিসেবে পরিচিত।

সবচেয়ে চমৎকার কার মুভি আমরা সেগুলোকেই বলব যেগুলো গাড়িকে নিয়েই  গল্প এবং একশন দৃশ্যগুলোও গাড়ি কেন্দ্রিক৷ এ ধরণের মুভিতে দুটোরই সমান ভারসাম্য বজায় রাখা হয়।

আমরা আজ এমন কিছু চমৎকার  কার মুভি রিভিউ নিয়ে আলোচনা করবো,

আমেরিকান গ্রাফিতি

রিলিজডঃ ১৯৭৩ সাল

পোস্টার – আমেরিকান গ্রাফিতি ; Image Source: pixel.com

কাহিনী সংক্ষেপঃ জর্জ লুকাস, যাকে সবাই  ” স্টার ওয়ারস” এর জন্যই  জানতো, তিনি প্রথম তার নিজের শহর মোডেস্টো ক্যালিফোর্নিয়া নিয়ে একটি সিনেমা তৈরি করেন।  রিচার্ড ড্রিফাস  ও রন হওয়ার্ড অভিনীত এই সিনেমায়  একদল হাইস্কুল বন্ধুদের যারা কলেজে যাওয়ার আগের রাতে শহরে ঘুরে বেড়াচ্ছিল। 

এই মুভিতে  ক্ল্যাসিক কার, রোড শো অফ যথেষ্ট ছিল,  এরপর আবার একজন  ভ্রমণকারী তুখোড় রেসার হিসেবে হ্যারিসন ফোর্ডকে দেখা যায়।

এপেক্স

রিলিজড ২০১৬

পোস্টার – এপেক্স ; Image Source: imdb.com

কাহিনী সংক্ষেপঃ আপনার যদি কখনো  মনে হয়  সুপারকার  ও হাইপারকারের মধ্যে তফাৎটা কী, তাহলে জানার অংশ হিসেবে অবিশ্বাস্য  ডকুমেন্টারিটা আপনার চমৎকার সূচনা হতে পারে। এটি শুধু হাইপারকার জনরার ডকুমেন্টারি নয়, ডকুমেন্টারিটি দর্শককে গাড়ির বিভিন্ন সুন্দর কিছু ডিজাইন, নির্মান, সাংবাদিক সম্পর্কে একটি চমৎকার ধারণাও দিবে। বোনাস হিসেবে আবার জমকালো সিনেমাটোগ্রাফি তো আছেই।

বুলিট

রিলিজড ১৯৬৮

পোস্টার – বুলিট ; Image Source: imdb.com

কাহিনী সংক্ষেপঃ আপনি যদি একদল যন্ত্রপাগলকে জিজ্ঞেস করেন সবচেয়ে ভাল কার মুভির কথা তারা আপনাকে  বুলিট – এর কথাই বলবে। একই উত্তর আপনি পাবেন যদি আপনি স্টিভ ম্যাককুইন ফ্লিক এর বেস্ট মুভি জানতে চান। এই সিনেমায় আপনি দম বন্ধ কিছু কারচেসিং দৃশ্য পাবেন যা সিনেমার সবচেয়ে  ভীতিকর ১০ মিনিট।  বুলিট মুভিতে সিনেমাজগতের ইতিহাসে সবচেয়ে আইকনিক কার  ১৯৬৮ ফোর্ড মুস্ট্যাং ফাস্টব্যাক ব্যবহার করা হয়।

ডেইজ অফ থান্ডার 

রিলিজডঃ ১৯৯০

পোস্টার – ডেইজ অফ থান্ডার ; Image Source: movieposter.blogspot.com

কাহিনী সংক্ষেপঃ আপনি যদি উইল ফেরেলস এর কমেডি ফ্লিক অথবা টালাডেগা নাইটস দেখে থাকেন তাহলে আপনি অবশ্যই বুঝতেই পারছেন ডেইজ অফ থান্ডার একটি প্যারেডি মুভি।

প্রকৃতপক্ষ্যে টম ক্রুজের স্টক কার রেসিং ফ্লিকে ফেরেলসের সঙ্গে সহঅভিনেতা জন সি রেইলিও অভিনয়  করেছেন। আরো আছে, রিকি ববির সিগনেচার স্লিংশট মুভ। 

সত্যি বলতে,  এই সিনেমা অনেকটা টপ গান ইন কারস এর মত যা মোটেই খারাপ কিছু নয়।

ডেথ প্রুফ

রিলিজড ২০০৭

পোস্টার – ডেথ প্রুফ ; Image Source: alamy.com

কাহিনী সংক্ষেপঃ প্রথমার্ধে রবার্ট রদ্রিগেজ এবং কোয়েন্টিন ট্যারান্টিনোর গ্রিন্ড হাউজ ডাবল ফিচার  হরর জনরায় অনন্য দিকের সৃষ্টি করে। এবং এটা হয়েছে সত্যি বলতে  খুনির হত্যার অস্ত্র হিসেবে ১৯৭০ সালের চেভি নোভা এবং ১৯৬৯ ডজ চার্জার ব্যবহার করার জন্য। প্রচুর পরিমাণে কোয়েন্টিন ট্যারান্টিনোর সিগনেচার ফ্লেয়ার, গতিময় একশন দিয়ে শক্তিশালী গাড়ি,  বিদ্ধংসী মুভি, ভীতিকর সিনেমাকে শ্রদ্ধা জানানো হয়।

ড্রাইভ 

রিলিজডঃ ২০১১

পোস্টার – ড্রাইভ ; Image Source: imdb.com

কাহিনী সংক্ষেপঃ যদি এমন কোন মুভি থাকে যেটা রায়ান গসলিং বিদ্বেষী থেকে তার একনিষ্ঠ ভক্ত বানাবে সেটা “ড্রাইভ”।  এই নিও নয়ের  ক্রাইম ড্রামা সিনেমা একজন স্টান্ট ড্রাইভার কে নিয়ে যে পরে  পলাতক অপরাধীতে পরিনত হয়। এই মুভিতে রায়ান গসলিং এর চরিত্র  সুন্দর ১৯৭৩ সেভেল চালাতে দেখা যায়।  যার ক্রাইম থ্রিলার পছন্দ তাদের অবশ্যই এই মুভি পছন্দ হবে।

দি ড্রাইভার 

রিলিজডঃ ১৯৭৮

পোস্টার – দ্য ড্রাইভার ; Image Source: thedrivermovie2018.com

কাহিনী সংক্ষেপঃ ১৯৭৮ সালের এই মজার ক্রাইম থ্রিলার এমন একটি মুভি যেটি আগের মুভি” ড্রাইভ” কে অনুপ্রানিত করেছিল।এই মুভি  কোয়েন্টিন ট্যারান্টিনোর  মুভি ভক্তদের কাছ থেকে  তাকে  কাল্ট – স্ট্যাটাস   পেতে ও  উৎসাহিত করে। এই মুভিতে আপনি প্রচুর আগ্নেয়াস্ত্র ব্যবহার,কার রেসিং, ক্ল্যাসিক কার দেখতে পাবেন।

ফাস্ট এন্ড ফিউরিয়াস 

রিলিজডঃ ২০০১

পোস্টার – ফাস্ট এন্ড ফিউরিয়াস ; Image Source: movielover.blogspot.com

কাহিনী সংক্ষেপঃ কার মুভি বলতে বর্তমান জেনারেশনকে যদি জিজ্ঞেস করা হয় প্রায় সবাই সবার আগে ফাস্ট এন্ড ফিউরিয়াস সিনেমার নাম বলবে। ফাস্ট এন্ড ফিউরিয়াস সাগা তার কাস্টিং, একশন, গতি, গাড়ির ব্যবহারের জন্য সবসময় তার ভক্তদের শিহরিত করে। 
যদিও এটা বলা যায়না যে এই মুভির সব একশন দৃশ্য  রিয়েলস্টিক, কিন্তু তারপর রিয়েলিস্টিক হোক আর আর অল্প একটু প্রযুক্তি নির্ভর আপনাকে এই মুভির একশন মুগ্ধ করবেই।

গন ইন ৬০ সেকেন্ডস

রিলিজড ২০০০

পোস্টার – গন ইন সিক্সটি সেকেন্ডস ; Image Source: imdb.com

কাহিনী সংক্ষেপঃ যদিও অল্প একটু গুঞ্জন শোনা যায়,  অরিজিনালের চেয়ে  নিকোলাস কেজ ও এঞ্জেলিনা জোলির অভিনীত রিমেক গন ইন ৬০ সেকেন্ডস বেশি জনপ্রিয়তা পায়।এমন নয় যে প্রথম টি ভাল না ছিলনা কিন্তু পরের টায়  হলিউড কায়দায়  গাড়ি ব্যবহার করা হয়। এবং সেটা এই মুভিতে ব্যবহার না হলে অবশ্যই ফাস্ট এন্ড ফিউরিয়াস সৃষ্টি হতনা। একশন/ রোমাঞ্চকর যাই হোক দর্শক বারবার দেখতে উৎসাহিত হবে । 

লি ম্যানস

রিলিজড ১৯৭১

পোস্টার – লি ম্যানস ; Image Source: foxmovies.com

কাহিনী সংক্ষেপঃ যদি একজন ও মনে করে স্টিভ ম্যাককুইন এর বুলিট  তার বেস্ট কার মুভি নয় তার কারণ হতে পারে লি ম্যানস। যারা জানেন না তাদের জন্য লি ম্যানস হচ্ছে ২৪ ইন্ডুরেন্স এর রেস যেটি ফ্রান্সের ১৪.৫ কিলোমিটার শহুরে রাস্তা জুরে হয়েছিল। বিশ্বের  সবচেয়ে কঠিন ইন্ডিউরেন্স রেস এবং যানবাহন নির্মান ও চালকদের  প্রমানের ক্ষেত্র দুইটিই ছিল লি মানস।

ম্যাড ম্যাক্সঃ ফিউরি রোড

রিলিজড ২০১৫

পোস্টার – ম্যাড ম্যাক্সঃ ফিউরি রোড ; Image Source: allposter.com

কাহিনী সংক্ষেপঃ দি ম্যাডম্যাক্স ফ্রাঞ্চাইজি একটি সাধারন ভাবেই অসাধারণ সিনেমা,  আবার অনেকেই একবাক্যে স্বীকার করেন  গাড়ির  চমৎকার ব্যবহার হয়েছে। ফিউরি রোড এর জন্য যা একেবারেই সত্য। একেবারেই যারা জানেন না তাদের জন্য, এই মুভির প্রত্যেকটি গাড়ি অস্ট্রেলিয়ার ডেজার্ট ওয়েস্টল্যান্ডে তৈরী ও চালনা করা হয়। আরো মুগ্ধ করার বিষয় হচ্ছে এখানে স্পেশাল ইফেক্ট ছাড়া যেসকল একশন দৃশ্য,  ভাংচুর, এক্সপ্লোয়েশন সমস্ত সত্যিই সৃষ্টি করা হয়েছি GGI  এড়িয়ে। মানে দাড়াচ্ছে গাড়িগুলো কে আসলেই ধংস করা হত মুভির জন্য। এজন্যই হয়ত কার মুভিজগুলার মধ্যে ম্যাডম্যাক্সঃ ফিউরি রোড একটি জ্বলজ্বলে নাম এখনো।







Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *