in

কিভাবে স্মার্ট হওয়া যায়?

স্মার্টনেস বলতে সাধারনত কি বুঝি আমরা? অনেকের কাছে এর অনেক ধরনের ব্যাখ্যা রয়েছে। কিন্তু সঙ্গত অর্থে স্মার্টনেস হলো বুদ্ধিমত্তা এবং শারীরিক ভাষার সমন্বয়ে অন্যদের দৃষ্টি আকর্ষণ করার ক্ষমতা। স্মার্ট মানুষ যেকোন পরিস্থিতিতে খুব সহজেই অন্য মানুষদের মাঝে নিজের কথা বা আইডিয়াকে বিশ্বাসযোগ্য করে তুলতে পারে। সাধারণ ভাষায় বললে আমরা যাকে বলি, পটিয়ে ফেলা বা কনভেন্সড করার ক্ষমতা। স্মার্ট মানুষদের মধ্যে সব থেকে বড় গুণ হচ্ছে, যেকোন বিষয় সম্পর্কে তাদের সাধারণ ধারণা থাকে, যা অন্যদের চোখে তাকে তুখোড় বুদ্ধিমান বলে মনে করায়.

আমাদেরকে প্রতিদিন প্রয়োজনে অপ্রয়োজনে শত শত মানুষের সাথে চলতে হচ্ছে, বিনিময় করতে হচ্ছে, কাজ করতে হচ্ছে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই কাজের ক্ষেত্রে বিভিন্ন সময়ে মানুষকে সামলানোর জন্য দক্ষতার প্রয়োজন হয়ে পড়ে।

আপনি যত বেশি মানুষকে নিজের কাজের গতি বোঝাতে পারবেন, ততই তাদের সাথে কাজ করা আপনার জন্য সহজ হবে। আপনি সহজেই সাফল্যের দেখা পাবেন। কিভাবে সহজ কিছু উপায়ে নিজেকে স্মার্ট করে তোলা যায় সেই বিষয়গুলো নিয়েই এই লেখাটি। দেখে নেওয়া যাক তাহলে বিস্তারিত-

Image result for learning from others

১. জানার ব্যাপারে উৎসাহী হোন

কোন কিছু শেখার ক্ষেত্রে কোথাও না শব্দটি বলা উচিত না। আপনি নিজেও জানেন না আজকে যেটা শিখছেন সেটা কখন কীভাবে কোন পরিস্থিতিতে আপনার জীবনের খুব গুরুত্বপূর্ণ একটি সময়ে এসে কাজে লেগে যেতে পারে। তাই সবসময় নতুন কিছু শেখার জন্য প্রস্তুত থাকুন। নতুন কিছু জানার জন্য উৎসুক থাকুন। আর সুযোগ পেলেই শিখে ফেলুন, জেনে নিন। এর ফলাফল হয়ত আপনি সাথে সাথেই পেয়ে যেতে পারেন অথবা ভবিষ্যতে যে কোন পর্যায়ে এটা আপনাকে অনেক বেশি সাহায্য করবে।

২. সংবাদপত্র পড়ুন

নিয়মিত সংবাদপত্র পড়লে দেশ বিদেশের দৈনন্দিন ঘটে যাওয়া নানা খবরাখবর আপনার জানা হয়ে যাবে। পরবর্তীতে যখন অফিস বা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কোথাও এই বিষয় নিয়ে আলোচনা হবে, তখন যে কোন ধরনের প্রশ্নের উত্তর দিতে সক্ষম হবেন। নিজের জানা জ্ঞানগুলোকে অন্যদের সাথে শেয়ার করেও স্মার্টনেস দেখাতে পারবেন।

Image result for reading book

৩. বই পড়ুন

বই মানুষের জ্ঞানের পরিধি বৃদ্ধি করে। নিয়মিত বই পড়ার অভ্যাস আপনার সৃজনশীলতাকে প্রখর করে তুলবে, আর আপনার ভেতরের সংকীর্ণ চিন্তা ও সীমাবদ্ধতাকে দূর করে দেবে। তাই বেশি বেশি বই পড়ার অভ্যাস তৈরি করুন। চেষ্টা করুন ভাল ভাল বই টানা শেষ করে যেতে। এটা আপনাকে শুধু স্মার্টই করবে না, আপনার জীবনে নানা ভাবে অবদান রাখতে পারে, আপনার বই পড়ার অভ্যাস।

৪. স্মার্ট মানুষের সাথে মিশুন

আমাদের আচার ব্যবহারের সবচেয়ে বেশি অংশ আমরা শিক্ষা নিয়ে থাকি আমাদের চারপাশের মানুষজনের থেকে। যে ধরনের মানুষের সাথে বেশি মেলামেশা করবেন সেই ধরনের মানুষের ইফেক্ট আপনার উপরেও আসবে এটাই স্বাভাবিক। তাই স্মার্ট হতে হলে স্মার্ট মানুষের সাথে সময় কাটান, তাদের জীবনযাপন অনুসরণ করুন। সেভাবে নিজেকে পরিচালনা করুন।

Related image

৫. নিজের জ্ঞান শেয়ার করুন

কি বলবো, কিভাবে বলবো, কে কি ভাববে, সবাই হাসবে এসব ভেবেই আমরা বিভিন্ন জায়গায় নিজেদের জ্ঞানকে আমাদের ভেতরেই পিষে ফেলি। আপনি যা শিখেছেন, আপনি যেটা জানেন সেটা অন্যদের সাথে শেয়ার করুন। এর ফলে আপনি আপনার আইডিয়া সম্পর্কে তাদের মতামত, তাদের দৃষ্টিভঙ্গি জানতে পারবেন। যেটা আপনার আইডিয়াকে আগের চেয়েও সুক্ষ ও পরিপূর্ণ করে তুলবে। তাই কখনো নিজের আইডিয়া অন্যদের সাথে শেয়ার করতে ভয় পাবেন না।

Image result for talking with others

৬. পোষাক পরিচ্ছদে স্মার্ট হোন

স্মার্টনেসের জন্য সবকিছুই প্রয়োজন। মুখের কথা বলার ধরন থেকে শুরু করে বাহ্যিক পোষাক পরিচ্ছদ সবকিছুই একটা মানুষের স্মার্টনেস প্রকাশ করে থাকে। তাই স্মার্ট হতে হলে অবশ্যই স্মার্ট দেখাবে এই ধরনের পোষাক পরিচ্ছদ করুন। তার মানে নেই না যে সবসময় আপনাকে স্যুট বুট পড়তে হবে। ফরমাল শার্ট প্যান্টেও স্মার্ট থাকা যায়।

Image result for businessman
\

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *